Professor Ghulam Azam

Home » 2016 » August

Monthly Archives: August 2016

রাজনীতিছেলের সন্ধান চেয়ে গোলাম আযমের স্ত্রীর থানায় ডায়রি

http://www.news-bd.net/newsdetail/detail/200/238092

একাত্তরের মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলায় আটকাবস্থায় মৃত্যুবরণকারী জামায়াতের ইসলামীর সাবেক আমীর অধ্যাপক গোলাম আযমের স্ত্রী সৈয়দা আফিফা আযম ছেলের সন্ধান চেয়ে রমনা মডেল থানায় সাধারণ ডায়রি করেছেন।
আজ (বুধবার) রাত পোনে দশটার দিকে রমনা মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বরাবর এই ডায়রি করা হয়।
এ সময় আবেদনকারী আফিফা আযমের সাথে আরো ছিলেন দুই আইনজীবী ও এক নাতি। তারা হলেন অ্যাডভোকেট নুরুজ্জামান, অ্যাডভোকেট ইউসুফ মোল্লা ও নাতি বিলকিস।
গত ২২শে আগস্ট রাতে গোলাম আযমের ছেলে সেনাবাহিনীর সাবেক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল আব্দুল্লাহিল আমান আযমীকে মগবাজারের বাসা থেকে ডিবি পরিচয়ে সাদা পোশাকের কয়েকজন সদস্য ধরে নিয়ে যায়। এর পর থেকে আর তার সন্ধান পাওয়া যাচ্ছে না।
সাধারণ ডায়রিতে অধ্যাপক গোলাম আযমের স্ত্রী নিজের বয়স ৮৪ বছর উল্লেখ করে বলেন, তিনি একজন বয়োবৃদ্ধা ও অসুস্থ নারী। তার ছয় ছেলে মেয়ের মধ্যে ৫জনই বিদেশে থাকায় তার কাছে থাকতো শুধুমাত্র তার ৪র্থ সন্তান আব্দুল্লাহিল আমান আযমী।
বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর সাবেক এই ব্রিগেডিয়ার জেনারেলের বয়স ৫৭ বছর এবং উচ্চতা ৫ ফুট সাড়ে ৬ ইঞ্চি উল্লেখ করা হয় সাধারণ ডায়রিতে।
থানায় ডায়রি করার বিষয়ে মুঠোফোনে যোগাযোগ করে জানতে চাইলে অ্যাডভোকেট ইউসুফ মোল্লা টাইমনিউজবিডিকে জানান, রমনা মডেল থানার ওসি মশিউর রহমান সাধারণ ডায়রিটি গ্রহণ করেছেন। তিনি ইনস্পেক্টর (তদন্ত) আলী হোসেনকে এ বিষয়ে তদন্ত করার দায়িত্ব দেন। এ বিষয়ে পরিবারকে আগামীকাল (বৃহস্পতিবার) সিদ্ধান্ত জানাবেন বলেও ওসি জানিয়েছেন বলে টাইমনিউজবিডিকে বলেন অ্যাডভোকেট ইউসুফ।

এদিকে, সাধারণ ডায়রির একটি কপি সংগ্রহ করা সম্ভব হয়েছে। পাঠকদের জন্য ওই সাধারণ ডায়রির লেখা হুবহু নিচে তুলে ধরা হলো:
“বরাবর,
ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা
রমনা মডেল থানা
ডিএমপি, ঢাকা।
বিষয়: সাধারণ ডায়রীর আবেদন
জনাব,
যথাবিহীত সম্মানপূর্বক বিনীত নিবেদন এই যে, আমি নিম্ন স্বাক্ষরকারীনি বয়োবৃদ্ধা, অসুস্থ এক নারী সৈয়দা আফিফা আযম (৮৪), স্বামী মৃত অধ্যাপক গোলাম আযম, সাং ১১৯/২, কাজী অফিস লেন, বড় মগবাজার, থানা-রমনা, ডিএমপি, জেলা-ঢাকা আপনাকে অবহিত করছি যে, আমার ৪র্থ ছেলে আব্দুল্লাহিল আমান আযমী, বয়স ৫৭, উচ্চতা ৫‌’‌৬‌’‌‌’‌, গা্য়ের রং ফর্সা, বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর সাবেক ব্রিগেডিয়ার জেনারেলকে গত ২২/৮/২০১৬ খ্রি: তারিখ রাত অনুমান ৯ ঘটিকার সময় উল্লেখিত ঠিকানায় ৭ম তলায় অজ্ঞাতনামা ২০-৩০জন দৃস্কৃতিকারী বাসায় জোরপূর্বক প্রবেশ করে বাসার গার্ড, গৃহকর্মী ও আমাদের ব্যবহারের ৭টি মোবাইল, ১টি ট্যাব ও সিপিওসহ আযমীকে বল প্রয়োগপূর্বক অজ্ঞাত স্থানে নিয়ে যায়। বাসার নিচে গার্ড ও প্রতিবেশীদের নিকট জানতে পারি বাহিরে আরো ২৫-৩০জনের দল অবস্থান করছিল। তাকে বহনকারী গাড়ি নং ঢাকা মেট্রো–ঘ-১৪-১৬৮০সহ বহরে ২০টির মতো গাড়ি ছিল। সর্বমোট ৫০-৬০ জনের দলের অনেকে নিজেদেরকে ডিবির পরিচয় প্রদান করে। পরে আমরা থানা ও ডিবি অফিসে খোঁজ নিলে তাহারা জানায় আমার ছেলে তাহাদের কাছে নাই। পরের দিন পত্রিকায়ও এ ধরনের আটক/নিখোঁজ খবর প্রকাশ করে। আমি বৃদ্ধা মানুষ। আমার ৬ সন্তানের অন্যান্যরা দেশের বাহিরে অবস্থান করায় এই ছেলের সেবায় কোন রকম বেঁচে আছি। আবদুল্লাহিল আমান আযমীর অনুপস্থিতিতে আমি বিভ্রান্ত, সাথে সাথে আপনাদেরকে বিষয়টি অবহিত করতে পারিনি।
এমতাবস্থায় আমার ছেলে আবদুল্লাহিল আমান আযমীর নিখোঁজ থাকার বিষয়টি আপনার থানায় সাধারণ ডায়রীর অন্তভূক্ত করে সন্ধান প্রদানে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করে বাধিত করবেন।
বিনীত নিবেদক
সৈয়দা আফিফা আযম”
উৎসঃ টাইমনিউজবিডি

Advertisements

Complaint filed regarding disappearance

http://www.news-bd.net/newsdetail/detail/200/238092

Syeda Afifa Azam, the wife of late Ghulam Azam, has filed a general diary entry at Ramna Model police station seeking the whereabouts of her son Abdullahil Amaan Azmi, who was recently abducted by men claiming to be members of Detective Branch of police.
The general diary entry was filed at around 10 pm on Wednesday towards Ramna Model police station Officer in Charge (OC). At the time, Mrs. Afifa Azam was accompanied by two lawyers, Advocate Nuruzzaman and Advocate Yusuf Molla, and her grand daughter Bilqis.
On the night of the 22nd of August, ex-Brigadier General Abdullahil Amaan Azmi, the son of Ghulam Azam, was abducted by men in plainclothes claiming to be members of Detective Branch of police. No trace of his whereabouts has been found till now.

On being questioned by media over the issue of the general diary entry at the police station, Advocate Yusuf Molla said, Ramna Model police station Officer in Charge Moshiur Rahman had accepted the general diary entry. Moreover, he had assigned Inspector (Investigation) Ali Hossain to the task of investigating the matter.

On the other hand, a copy of the general diary entry as been obtained as follows,

To
Officer in Charge,
Ramna Model Police Station,
DMP, Dhaka

Subject: Appeal for General Diary Entry

Dear Sir,

I, the undersigned, an old aged ailing woman, Sayeda Afifa Azam (84), husband late Professor Ghulam Azam, Address 119/2, Kazi Office Lane, Boro Moghbazaar, Subdistrict-Ramna, DMP, District- Dhaka, would like to inform you with due respect that my fourth son Abdullahil Amaan Azmi, aged 57, height 5’6”, skin colour fair, Bangladesh Army ex-Brigadier General, was forcefully taken away along with our house guard and the house maid to an unknown location on 22/08/2016 at around 9 pm by 20-30 miscreants who arrived at the 7th floor of the building at the above address, entered using force and also confiscated 7 mobile phones, one tab and a CPU during the ordeal. I came to know from a guard on the ground floor and our neighbours that there was another group of 25-30 more people stationed outside the house who had come to the location at the same time. They arrived in around twenty vehicles, and my son was taken away in one vehicle with the number plate Dhaka Metro-Gha-14-1680. In the group of 50-60 people, most identified themselves as members of the Detective Branch of police. Later, when we contacted the police station and the office Detective Branch, we were informed that they did not have my son in their custody. On the next day, news regarding the arrest/disappearance of my son was also published in several national newspapers. I am an old woman. Since the rest of my children stay overseas, I have nobody to look after my wellbeing and needs except this one child of mine. The disappearance of my son Abdullahil Amaan Azmi has left me in shock; thus I was unable to inform you of the matter of his disappearance immediately.

At this junction, I sincerely hope and pray that you would initiate the appropriate measures to record the incident of the disappearance of Abdullahil Amaan Azmi as a general diary entry and take appropriate legal measures and provide services to locate his whereabouts immediately.

Yours sincerely,
Sayeda Afifa Azam

Family statement on Arrest of Amaan Azmi (Bangla translation)

ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অবঃ) আব্দুল্লাহিল আমান আযমী এর গ্রেপ্তার প্রসঙ্গে পরিবারের সদস্যদের বিবৃতিঃ
২২ অগাস্ট সোমবার রাত ৮ টার দিকে ৩০ জনেরও বেশি বেসামরিক পোশাক পরিহিত লোকজন আমাদের ঢাকার মগবাজারস্থ বাসায় হামলা করে এবং আমাদের ভাই আব্দুল্লাহিল আমান আযমী কে অপহরণ করে। তারা সবাই নিজেদেরকে বাংলাদেশ পুলিশের গোয়েন্দা বিভাগের সদস্য হিসেবে দাবি করে।
তারা কোন গ্রেপ্তারি পরোয়ানা দেখায় নি এবং গ্রেপ্তারের কোন কারণও দর্শায় নি। বাংলাদেশ পুলিশের পক্ষ থেকে গ্রেপ্তারের কোন আনুষ্ঠানিক স্বীকৃতিও পাওয়া যায় নি। এই স্বীকৃতি না পাওয়ার ফলে আশংকা করা হচ্ছে যে আমান আযমীও অন্যান্য অনেক বিরোধী দলীয় নেতৃবৃন্দের পরিবারের সদস্যদের মত বিচারবহির্ভূত গ্রেপ্তার বা অপহরণের শিকার হতে পারেন। এই আশংকা মোটেই অমূলক নয় কারণ সাম্প্রতিককালে বিরোধী দলীয় নেতাকর্মীদের পরিবারের সদস্যদেরকে ঢালাওভাবে অপহরণ করা হচ্ছে।
তথাকথিত পুলিশ সদস্যরা বাড়ি সংলগ্ন সমস্ত সড়কপথ ঘেরাও করে রাখে এবং বাড়ির দরজা ভেংগে জোরপূর্বক বাড়ির অভ্যন্তরে প্রবেশ করে। এরপর তারা বাড়ির ম্যানেজারকে নির্দয়ভাবে প্রহার করতে করতে তাকে অচেতন করে ফেলে। আমাদের ৮৩ বছর বয়সী বৃদ্ধা মা, আমানের স্ত্রী এবং তার কনিষ্ঠ সন্তানেরা যাদের বয়স চারেরও কম সবাই তখন বাড়িতে ছিলেন। বাড়ির অন্যান্য কর্মচারীদেরও আক্রমণ করা হয় এবং শারীরিক আঘাত করা হয়। আমানের স্ত্রীকেও গ্রেপ্তারের হুমকি দেয়া হয়।
আমান আমাদের একমাত্র ভাই এবং আমাদের পিতা মরহুম প্রফেসর গোলাম আযম এর একমাত্র সন্তান যিনি বাংলাদেশে অবস্থান করছিলেন। আমান একজন পদকপ্রাপ্ত উচ্চপদস্থ সামরিক অফিসার ছিলেন (ব্রিগেডিয়ার জেনারেল) এবং তিনি ৩০ বছর অত্যন্ত কৃতিত্বের সাথে তার সামরিক দায়িত্ব পালন করেছেন। তিনি কোন রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব নন এবং তার বিরুদ্ধে কোন বেআইনী কাজের অভিযোগও নেই। তিনি আমাদের পারিবারিক বাসস্থানে থেকে আমাদের বৃদ্ধা মায়ের দেখাশোনা করতেন এবং আমাদের পরিবারের দেশে অবস্থানকারী একমাত্র পুরুষ সদস্য হিসেবে দেশে আমাদের পরিবারের অভিভাবকের দায়িত্ব পালন করতেন।
এই ঘটনা আমাদের পরিবারের সদস্যদের অত্যন্ত আতঙ্কিত করেছে এবং আমরা সবাই আমাদের ভাই আমান আযমী এবং আমাদের পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের নিরাপত্তা নিয়ে ভীষণ উদ্বিগ্ন। আমরা আহবান করছি যেন এ ক্ষেত্রে আইনের প্রতি সম্মান দেখান হয় এবং আইনগত পদক্ষেপ নেয়া হয়। আমরা আহবান করছি যেন আব্দুল্লাহিল আমান আযমী কে অবিলম্বে মুক্তি দিয়ে তার পরিবারের সদস্যদের কাছে ফেরত পাঠান হয় অথবা যথাযথ আইনগত প্রক্রিয়া অনুসরণ করে তাকে আদালতের সামনে হাজির করা হয়।
সংবাদ সংশ্লিষ্ট অনুসন্ধানের জন্য নিম্নে যোগাযোগের অনুরোধ জানান যাচ্ছেঃ
সালমান আল আযামী
salmanalazami66@gmail.com

Official Family Statement on the Arrest of Ex-Brigadier General Amaan Azmi

On Monday, 22nd August, at 8pm, more than thirty plainclothes men claiming to be from the Detective Branch of the Bangladesh Police stormed our family residence in the Moghbazar area of the Bangladeshi capital, Dhaka, and seized our brother, Abdullahil Amaan Azmi.

No warrant was provided by the officers, and no cause of arrest was expressed. No official acknowledgement of his arrest has yet been made, without which there are credible fears for a possible extrajudicial abduction, the latest in a string of such abductions that have targeted family members of opposition leaders.

The officers cordoned off the whole street before breaking down the door and forcibly entering the family home, blindfolding the caretaker and severely beating him until he fell unconscious. Our 83-year-old mother, Amaan’s wife and his youngest children, both under the age of four, were in the house at the time. Other members of the household were assaulted and his wife was threatened with arrest.

Amaan is our only sibling and the only child of our father, the late Professor Ghulam Azam, to currently reside in Bangladesh. A former decorated Brigadier General in the Bangladesh Army with 30 years of exemplary service to his name, he was neither a politician, nor charged with any illegal activity whatsoever. He lived at our family home caring for our elderly mother. As the only male member of the household, he was the guardian of our family there.

This has left the family deeply traumatized and fearful for the safety of our brother and our family. We call for the respect and observance of due process and the rule of law. We call for Abdullahil Amaan Azmi’s immediate release and safe return to his family, or for police to produce him swiftly before court in accordance with due process.

For press enquiries please contact Dr Salman Al-Azami salmanalazami66@gmail.com